AirPods এর থার্ড জেনারেশন একটি নতুন ডিজাইন প্রনয়ণ করে যার অনেকটাই AirPods Pro-এর ডিজাইনের অনুকরণ। ছোট ইয়ারবাডগুলি গোলাকৃতির এবং কানের মধ্যে সরাসরি শব্দ প্রবেশ করে। অ্যাপল তার নতুন মধ্য-স্তরের ইয়ারবাডে কয়েকটি এয়ারপডস প্রো বৈশিষ্ট্য প্রয়োগ করেছে উদাহরণস্বরূপ, এগুলির মধ্যে অ্যাডাপ্টিভ EQ রয়েছে, যা শ্রোতার কানের আকৃতি এবং ইয়ারবাড ফিটের উপর ভিত্তি করে রিয়েল-টাইমে কাস্টমাইজড অডিও সামঞ্জস্য ধরে রাখে। অ্যাপল নতুন এয়ারপডকে ওয়াটার রেজিস্ট্যান্স সক্ষমতা দিয়ে তৈরি করেছে এর বিশেষ বৈশিষ্ট হলো ঘাম এবং বৃষ্টি ইয়ারবাডগুলিকে ক্ষতিগ্রস্থ করবে না।



ব্যাটারি এবং চার্জঃ প্রতিটি ইয়ারবাডের ব্যাটারির আয়ু এখন ছয় ঘণ্টা। চার্জিং কেস ইয়ারবাডগুলিকে সম্পূর্ণরূপে রিচার্জ করতে পারে, যার ফলে ৩০ ঘন্টারও বেশি সময় ব্যবহার করা যেতে পারে, এমন কি মাত্র পাঁচ মিনিটের চার্জিং এক ঘন্টা ব্যবহার করার সক্ষমতা প্রদান করে। চার্জিং কেসটি ওয়্যারলেস চার্জিং করতেও সক্ষম এবং এটি একটি ম্যাগসেফ চার্জারে স্থাপন করা যেতে পারে।

সাউন্ড সিস্টেমঃ সেকেন্ড জেনারেশনের সাথে তুলনা করলে সাউন্ড কোয়ালিটি যথেষ্ট উন্নত। ANC (Active Noise Cancellation) মোড সংযজন করে অডিওর গুণগতমানকে আরো উন্নত করা হয়েছে। গতিশীল হেড ট্র্যাকিং সহ স্পাশিয়াল অডিও একটি আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্য নিয়ে ফিচারটি সাজানো হয়েছে। আপনার চারপাশে সঙ্গীত, টিভি শো, চলচ্চিত্র এবং আরও অনেক কিছুর জন্য একটি থার্ড ডাইমেনশন অডিও শোনার অভিজ্ঞতা পাবেন। প্রতিটি দিক থেকে আপনার কানে এমন সামঞ্জস্যপূর্ণ  শব্দ এনে দিবে যাতে আপনি আরো গভীরভাবে নিমজ্জিত হতে থাকবেন সুরের মূর্ছনায়। আপনার কাছে মনে হবে আপনি কোনো কনসার্ট কিংবা থিয়েটরে অবস্থান করছেন। অ্যাপল এটিকে ডিজাইন করেছে ডায়নামিক ড্রাইভার হিসেবে, এবং এটি একটি কাস্টম অ্যামপ্লিফায়ার দ্বারা চালিত যার অসাধারণভাবে সাউন্ড বজায় থাকে।  যাতে আপনি আরো গভীর গভীর, সমৃদ্ধ ও পরিষ্কার স্বরে উপভোগ করতে পারেন।

ফোর্স সেন্সর এবং পিঞ্চ কন্ট্রোলঃ ফোর্স সেন্সর আপনাকে আপনার বিনোদনের উপর আরও বেশি নিয়ন্ত্রণ করার সক্ষমতা প্রদান করবে। আপনি গান চালাতে, বিরতি দিতে এবং এড়িয়ে যেতে পারবেন। কল রিসিভ এবং বিচ্ছিন্ন করতে পারবেন।

কানেকশন ফ্ল্যাক্সিবিলিটিঃ অতিসাধারণ সেটিং এবং খুব সময়ে Air Pods কাঙ্ক্ষিত ডিভাইসের সাথে সংযোগ স্থাপন করতে পারে।  আপনার আইফোন বা আইপ্যাডের কাছে AirPods রাখুন এবং আপনার iCloud অ্যাকাউন্টের প্রতিটি ডিভাইসের সাথে Pair  করতে Connect এ আলতো চাপুন। আপনি যদি আপনার Mac-এ মিউজিক বাজিয়ে থাকেন আর এমন সময় যদি আপনার মোবাইলে কল আসে সেক্ষেত্রে কলের উত্তর দিতে পারবেন ডিভাইস পরিবর্তন না করেই।



বিশেষ ডিটেকশন সক্ষমতাঃ একটি অতি উন্নত মানের স্কিন-ডিটেক্ট সেন্সর আপনার কান এবং অন্যান্য (কানের) পৃষ্ঠের মধ্যে পার্থক্য জানে, তাই অডিও কেবল তখনই চলে যখন আপনি AirPods ব্যবহার (পড়ে) থাকেন।  Find My app দিয়ে আপনার AirPods র‍্যাক ডাউন করবেন তখন প্রক্সিমিটি (Proximity) ভিউ দিয়ে দেখতে পারবেন কতটা কাছাকাছি আছে। ব্লুটুথ রেঞ্জের বাইরে থাকলে এটি আপনাকে ডিসকানেক্টেড সতর্কবার্তা প্রেরণ করে — অথবা  একটি শব্দ উৎপন্ন করে যা দিয়ে আপনি অবস্থান সনাক্ত করতে সক্ষম হবেন।

অডিও শেয়ারিংঃ  এয়ারপডের যেকোনো দুটি সেটের মধ্যে খুব সহজেই সংযোগ স্থাপন করে অডিও শেয়ার করা যায়। আইফোন, আইপ্যাড অথবা অ্যাপল টিভিতে মিউসিক শুনছে তার কাছাকাছি এয়ারপড নিয়ে আসলে আপনি ইন্সট্যান্ট কানেক্ট করতে পারবেন।